আজ ১লা এপ্রিল, ওড়িশা দিবস বা উৎকল দিবস

আজ ১লা এপ্রিল, ওড়িশা দিবস (Odisha Day)। এটি ‘উৎকল দিবস’ নামেও পরিচিত। ১৯৩৬ সালের ১ লা এপ্রিল ব্রিটিশ ভারতে ভাষার ভিত্তিতে পৃথক রাজ্য হিসেবে ওড়িশা আত্মপ্রকাশ করে। ওই দিনটির স্মরণে প্রতিবছর ১ লা এপ্রিল ওড়িশা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। আজ ওড়িশা দিবসে একনজরে দেখা যাক ওড়িশা রাজ্যকে –

♦ওড়িশা আয়তন অনুসারে ভারতের নবম বৃহত্তম রাজ্য এবং জনসংখ্যা অনুসারে ভারতের একাদশ বৃহত্তম রাজ্য। উপজাতি জনসংখ্যা অনুসারে ওড়িশা ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম রাজ্য।

♦ওড়িশার রাজধানী ও বৃহত্তম শহর হল ভুবনেশ্বর। বর্তমানে ওড়িশা রাজ্যে ৩০ টি জেলা রয়েছে। ওড়িশার প্রধান ভাষা হল ওড়িয়া।

♦ওড়িশার প্রধান নদী হল মহানদী। ওড়িশার সম্বলপুরের নিকট মহানদীর ওপর নির্মিত হীরাকুঁদ বাঁধ ভারতের দীর্ঘতম নদীবাঁধ। ওড়িশায় অবস্থিত চিল্কা হ্রদ ভারতের বৃহত্তম উপহ্রদ বা লেগুন।

♦ওড়িশার কটক শহরে ভারতের কেন্দ্রীয় ধান গবেষণাগার অবস্থিত। দেওমালি (১৬৭২ মি) হল ওড়িশার সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ। ওড়িশার ভিতরকণিকা হল ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অরণ্য।

♦ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলাকে ‘ওড়িশার অর্কিডের জেলা’ বলা হয়। ওড়িশার প্রাপ্ত ১৩০ প্রকার অর্কিডের ৯৭ প্রকারই শুধুমাত্র ময়ূরভঞ্জ জেলাতে পাওয়া যায়। ওড়িশার দারিংবাড়ি-কে ‘ওড়িশার কাশ্মীর’ বলা হয়।

♦ওড়িশার প্রধান পর্যটন আকর্ষণ গুলি হল — পুরীর জগন্নাথ মন্দির, কোনার্কের সূর্যমন্দির, ভুবনেশ্বরের লিঙ্গরাজ মন্দির, ময়ূরভঞ্জ জেলার বারেহিপানি ও জোরান্ডা জলপ্রপাত, চিল্কা হ্রদ (সাতপাড়া ও রম্ভা), সম্বলপুরের হীরাকুঁদ বাঁধ, সিমলিপাল জাতীয় উদ্যান, ভিতরকণিকা অভয়ারণ্য, উদয়গিরি-খন্ডগিরি, নন্দনকানন চিড়িয়াখানা প্রভৃতি।

-অরিজিৎ সিংহ মহাপাত্র (পার্শ্বলা, বাঁকুড়া)

©GK 24×7

এখান থেকে শেয়ার করুন
  • 70
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    70
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!